শ্রীবরদী উপজেলা প্রশাসনের মোবাইল ভিত্তিক ত্রাণ সহয়তা সেবা, পরিচয় গোপন রেখে ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হচ্ছে

 

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলা প্রশাসন সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে শুরু করেছে মোবাইল ভিত্তিক ত্রাণ সেবা। ইতোমধ্যেই জেলায় এমন সেবা ব্যবস্থা প্রশংসা কুড়াতে শুরু করেছে।
উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মানুষের কাঝে পৌঁছে দেয়া হয়েছে নির্দিষ্ট মোবাইল নম্বর। ওই নম্বরগুলিতে ফোন করলে বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছে সহায়তা সামগ্রী। নি¤œবিত্তের মানুষ থেকে শুরু করে নি¤œমধ্যবিত্তরা পর্যন্ত এই সহায়তা নিচ্ছেন। নি¤œমধ্যবিত্তদের জন্য যারা লজ্জায় কারো কাছে সাহায্য চাইতে পারেন না, তাদের জন্য এই সহায়তা আশির্বাদ হিসাবে দেখা দিয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিলুফা আক্তার এই সহায়তা ব্যবস্থার উদ্যোক্তা বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিলুফা আক্তার জানান, ‘মূলত এই আইডিয়াটা প্রথমে ছিলো নি¤œমধ্যবিত্ত মানুষ যারা লজ্জায় সাহায্য চাইতে পারে না তাদের জন্য। তবে এখন নি¤œবিত্ত মানুষরাও এই সহায়তা সেবা নিচ্ছেন। মূলত সরকারি সাহায্যের সাথে স্থানীয় ব্যবসায়ী সংগঠন, সামর্থ্যবান ব্যক্তি তাদের সহযোগিতা নিয়ে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে অসহায় মানুষদের কাছে সহায়তা পৌঁছানোর চেষ্টা করছি।’
এই কর্মকর্তা আরো জানান, পরিচয় গোপন রেখে উপজেলা প্রশাসনের নিজস্ব পরিবহনের মাধ্যম্যে সাহায্যপ্রার্থীদের কাছে প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে।
এদিকে শ্রীবরদী উপজেলা প্রশাসন শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে সরাসরি ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এক্ষেত্রেও ত্রাণ বিতরণে সর্বোচ্চ শৃংখলা দেখা গেছে এসব বিতরণ কার্যক্রমে।
এদিকে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলাতেও একই ভাবে সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে দরিদ্র মানুষদের। এই মোবাইল ভিত্তিক সহায়তার প্রদানের কার্যক্রমটি জেলায় সর্বস্তরের মানুষের প্রশংসা কুড়াচ্ছে।