শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার কৃষকদের পাশে দাড়িয়েছে শেরপুর জেলা পুলিশ

শেরপুর জেলার নকলা উপজেলা ভুট্টা চাষের জন্য উপযোগী। এ উপজেলায় ভুট্টার ব্যাপক আবাদ হয়েছে।  উপজেলার বন্দটেকি গ্রামের প্রান্তিক চাষী মোখছেদুল আলমের আবাদকৃত ৫০ শতক জমিতে ভুট্টা (মোচা) ক্ষেতে পরিপক্ক হলেও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রভাবে শ্রমিক সংকট দেখা দেওয়ায় জমিতেই ভুট্টা নষ্ট হবে মনে করেছিলেন তিনি।  তার এই অসহায়ত্বের কথা জানতে পেরে পাশে দাড়ায় শেরপুর জেলা পুলিশ।
“মানবিক পুলিশের চোখে, জনতার আকাঙ্খা লিখা থাকে” এ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে জেলার কৃষকদের পাশে দাড়িয়েছে শেরপুর জেলা পুলিশ।  শনিবার জেলা পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম (পিপিএম) এর নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো: আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বর নকলা থানা ও চন্দ্রকোনা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ সদস্যদের নিয়ে চাষী মোখলেছুর আলমের ৫০ শতক জমির ভুট্রার মোচা কেটে চাষীর বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়।
নকলা থানার ওসি মো: আলমগীর হোসেন শাহ, চন্দ্রকোনা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (এসআই) মোস্তাফিজুর রহমানসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা এ কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন।
পুলিশ সদস্যরা ভুট্টা কেটে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে চাষী মোখলেছুর রহমান বলেন, করোনার লকডাউনের প্রভাবে শ্রমিক না পাওয়ায় আমি ভুট্টার আবাদ ঘরে তুলতে পারবনা মনে করেছিলাম। কিন্তু পুলিশের এমন সহযোগীতায় আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।
SHARE