শেরপুরে প্রেসক্লাব সম্পাদকের চাচা সংঘর্ষে নিহত হওয়ার ঘটনায় ৩ নারীসহ ৫জন গ্রেপ্তার, ৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

শেরপুরে স্কুল স্থাপন নিয়ে বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে শনিবার নিহত হয়েছেন শেরপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিনের চাচা কৃষক শ্রীমত আলী। সেই ঘটনা পরিপ্রেক্ষিতে ৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে নিহতের ছেলে উকিল মিয়া। পুলিশ শনিবার রাত থেকে রবিবার পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ৩ নারীসহ মোট ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।
রবিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে র‌্যাব, সিআইডিসহ বিভিন্ন সরকারি এজেন্সির লোকজন।
শেরপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) নাহিদ হাসান চৌধুরী বলেছেন, ঘটনাটি অপ্রত্যাশিত। হামলার ঘটনার তদন্ত হচ্ছে। তদন্ত হলেই এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।
প্রেসক্লাব সম্পাদক মেরাজ উদ্দিন এনটিভিকে জানিয়েছেন, স্কুল স্থাপনকে কেন্দ্র করেই প্রতিপক্ষ সাদার সাথে তাদের বিরোধ চলছিল। সেই বিরোধ থেকেই গতকালের হামলার ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় মাধ্যম ও মামলার বরাতে জানা গেছে, মেরাজ উদ্দিন এবং তার পরিবার জাতীয় সংসদের হ্ইুপ ও শেরপুর সদরের এমপি আতিউর রহমান আতিকের নামে একটি স্কুল নির্মানের উদ্যাগ নেয়। যার নির্মান কাজ চলছে। এ স্কুল নিয়ে স্থানীয় একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলের রেজাউল করিম সাদার সাথে বিরোধের সৃষ্টি হয় মেরাজদের। সেই বিরোধের জের ধরেই কালকে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
সংঘর্ষে মেরাজের চাচা কৃষক শ্রীমত আলী, চাচাতো ভাই আল আমীন ডানোসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে শ্রীমত আলী মারা যান।

SHARE