নকলা সরকারি হাজী জালমামুদ কলেজের সাবেক অধ্যক্ষের দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত শুরু

শেরপুরের নকলা উপজেলার প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত সরকারি হাজী জালমামুদ কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুৎফর রহমানের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে।
আর্থিক দুর্নীতি, স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তির হিসাব বিবরণী, ব্যাংকের গচ্ছিত টাকার হিসাব বিবরণী দাখিল না করা, জমি সংক্রান্ত ও কর্মচারী নিয়োগ সংক্রান্ত কাগজ পত্রাদী বুঝিয়ে না দেওয়াসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে ধরা হয়েছে । ৩০ সেপ্টেম্বর বুধবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ময়মনসিংহ অ লের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যামিক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (কলেজ) প্রফেসর ড. বিমল চন্দ্র সরকারের নেতৃত্বে একটি দল তদন্ত শুরু করে। অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুৎফর রহমান কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে ২০১৫ সালের ১৭ আগস্ট যোগদান করেন এবং ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর অবসরে যান।
এ বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর উপ-পরিচালক প্রফেসর ড. বিমল চন্দ্র সরকার সাংবাদিকদের জানান, আমরা অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুৎফর রহমানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পেয়ে আজ তদন্তে এসেছি। স্থানীয় নেতৃবৃন্ধের অনুরোধে ১৫ দিনের সময় দেওয়া হয়েছে। ১৫ দিনের মধ্যে অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বিভিন্ন আর্থিক হিসাব কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আলতাব আলীকে বুঝিয়ে দিবে বলে এই মর্মে লিখিত অঙ্গিকার করেছেন। তাই আমরা তদন্তের সময় আরো ১৫দিন বৃদ্ধি করলাম । তবে আমরা আইগতভাবে যেটা করার সেটাই করব।
অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুৎফর রহমান বলেন, চাকুরীকালীন সময় ভুলত্রুটি হতেই পারে। প্রতিষ্ঠান যদি আমার কাছে কোন অর্থ পায় তা আমি ১৫ দিনের মধ্যে পরিশোধ করে দিব। তাছাড়া যদি কোন ভুলত্রুটি হয়ে থাকে সেটা সংশোধনের চেস্টা করবো। আমি যতদিন অধ্যক্ষ হিসেবে কর্মরত ছিলাম ততদিন সৎ ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করার চেষ্টা করেছি। এসময় নকলা উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ বোরহান উদ্দিন , নকলা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদ শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ , ভাইস চেয়ারম্যান সারোয়ার আলম তালুকদার মেয়র হাফিজুর রহমান লিটন ও কলেজের শিক্ষক , কর্মচারীগন উপস্থিত ছিলেন । জানাগেছে, একইদিনে ধনাকুশা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনসুর আলী ও হাবিল উদ্দিন বি এস সি এর বিরোদ্ধে আনীত দুর্নীতি অভিযোগের তদন্ত হয় ।

SHARE