নকলায় মৃগী নদীর ভাঙনে ঘরবাড়ি ও ফসলের ব্যপক ক্ষতি

গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষণের কারণে নকলা উপজেলার চন্দ্রকোনা ইউনিয়নের ভ্রহ্মপুত্র নদের শাখা মৃগী নদীর পানির তীব্র ¯্রােতে ভাঙন শুরু হয়েছে। এতে বাছুর আলগা দক্ষিণ পাড়া, চকবড়ইগাছি গ্রামের আফাজ উদ্দিন ও আছিয়া বেগমের বাড়ি ঘরসহ বেশি কিছু আবাদি জমি ও চলাচলের রাস্তা নদী গর্ভে বিলিন হয়েছে। অনেকেই নদী ভাঙন থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য বাড়ি-ঘর অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে।
এলাকাবাসী জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ মৃগী নদীতে অবৈধ ভাবে বেশ কয়েকটি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে প্রচুর পরিমাণে বালু উত্তোলনের কারণে নদীটি অধিক গর্ত হয়ে যায় ফলে বর্তমান অতি বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলে নদীর উত্তরপাড়ে চকবড়ইগাছী ও বাছুর আলগা এলাকায় এ ভাঙন শুরু হয়েছে। এ কারণে ঐ এলাকার একটি ঘাট সংলগ্ন পাকা রাস্তার নিচের মাটি সরে যাওয়ায় ঝুকিতে যাতায়াত করছে এলাকাবাসী। নকলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মদ সারোয়ার আলম তালুকদার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এছাড়া গত কয়েকদিনের অতি বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে নকলা উপজেলার গণপদ্দী, নকলা, উরফা ও গৌড়দ্বার ইউনিয়নে অনেক ফসলী জমি ও আমন চারা পানির নিচে তলিয়ে গেছে।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মাজহারুল ইসলাম জানান, রোববার সকাল থেকে নদী ভাঙন রোধে ব্যবস্থা নেয়া শুরু হয়েছে।