দুর্নীতি ঢাকতে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ১৪ ঘর ভেঙে দিলেন ইউএনও

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ১৪টি ঘর রাতের আঁধারে ভেঙে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দেয়া হয়েছে। দুর্নীতি ঢাকতে ঘর ভাঙা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার লাঙ্গলঝাড়া ইউনিয়নের তৈলকুপি গ্রামে ।
সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  আমিনুল ইসলাম  লাল্টু জানান, তৈলকুপি গ্রামে ১৪টি ঘর নির্মাণ করা হয় পুকুরের পাড়ে।  দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে সদ্য বদলিকৃত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমি জেরিন ঘরগুলো নির্মাণ করেন। অল্প দিনের মধ্যেই ঘরগুলো ধসে পড়ার আশঙ্কা দেখা দেয়। পুকুর ভরাটের জন্য আরো ৬ লাখ টাকা খরচ করেন  উপজেলা অফিস থেকে। গত এক সপ্তাহ আগে বর্তমান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাতের আঁধারে তৈলকুপি গ্রামের সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বুল্ডোজার লাগিয়ে ভেঙে ফেলেন। রাতের মধ্যেই ইটসহ বিভিন্ন মালামাল সরিয়ে ফেলা হয়েছে। দুনীঁতি ডাকতে এটি করা হয়েছে ।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোবায়ের আহমেদ চৌধুরী ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, উপকার ভোগীদের ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে ঘর ভাঙা হয়েছে। সাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সময়ে এ ঘর নির্মাণ করা হয় ।
আশ্রয়ণ প্রকল্পের ২ এর প্রকৌশলী আবুল কালাম আজাদ জানান, ঢাকা থেকে টিম যাবেন ওই এলাকায় । কোন অনিয়ম হলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।

SHARE