কেন আড়ালে পপি

দীর্ঘদিন ধরেই আড়ালে রয়েছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা সাদিকা পারভীন পপি। এই নিয়ে বার বার খবরের শিরোনামে আসলেও সামনে আসেননি এ তারকা। কিন্তু কেন পপি আড়ালে রয়েছেন সেটা তার ঘনিষ্ঠজনেরাও জানেন না। এদিকে পপির নিয়মিত ফোন নম্বরটিতে কল করলে সেটি এখনো বন্ধ পাওয়া যায়। সবশেষ গত বছরের ডিসেম্বরের ২৩ তারিখ ফেসবুকে পোস্ট করেছেন পপি। এরপর থেকেই অনেকটাই উধাও পপি। এর আগে তিনি কাজ শুরু করেন রাজু আলীম পরিচালিত ও ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ছবি ‘ভালোবাসার প্রজাপ্রতি’। তবে এ ছবির শুটিং অর্ধেক করেই লাপাত্তা হয়ে যান পপি।

পরিচালক পর্যন্ত পপির জন্য ছবির বাকি শুটিং শেষ করতে পারছেন না। পপির জন্যই এ ছবির কাজ আটকে আছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এদিকে এ ছবি ছাড়াও আরও একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার কথাও ডিসেম্বরেই মানবজমিনকে জানিয়েছিলেন এ নায়িকা। এরইমধ্যে পপি অভিনীত ‘ডাইরেক্ট অ্যাটাক’ ছবিটি সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। এ ছবিতে আমিন খানের বিপরীতে দেখা যাবে পপিকে। তবে ছবির প্রচারণায়ও নেই পপি। কিন্তু পপি কেন আড়ালে রয়েছেন? এ প্রসঙ্গে নায়িকার ঘনিষ্ঠজনরাও বলতে পারেননি। কারণ সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ রেখেছেন তিনি। সিনেমার কোনো লোকজনদের সঙ্গেও তার যোগাযোগ নেই। এদিকে মধ্যে গুঞ্জন ওঠে পপির গোপন বিয়ের। নায়িকা নাকি নিজের ইস্কাটনের বাসাও ছেড়ে দিয়েছেন। থাকছেন কূটনৈতিক পাড়ায়। স্বামীর দেয়া ফ্ল্যাটেই থাকছেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে ধোঁয়াসার সৃষ্টি হয়েছে। বিয়ে করলে সেটা গোপন রাখার বিষয়টি তারকাদের জন্য নতুন কিছু নয়। তবে এভাবে সবার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্নই কেন করবেন পপি? বিয়ে করলে সেটা লুকাচ্ছেনই বা কেন? সিনেমাপাড়ায় গুঞ্জন রয়েছে, পপি আর অভিনয়ে ফিরবেন না। তিনি সংসার নিয়েই ব্যস্ত থাকতে চাচ্ছেন। সেখানেই সময় দিচ্ছেন। এজন্যই এখন কারো সঙ্গে যোগাযোগ
রাখছেন না। এদিকে গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে করোনায়ও আক্রান্ত হয়েছিলেন পপি। তখন তিনি নিজের দেশের বাড়ি খুলনায় ছিলেন। করোনামুক্ত হয়ে ঢাকায় ফেরার পরই সিনেমায় মনোযোগী হতে থাকেন। এর মাঝেই হঠাৎ করেই নিজেকে আড়াল করে নেন পপি।

SHARE