ঈদের দ্বিতীয় দিন ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ

এক বছরেরও বেশি সময় ধরে করোনাভাইরাস কেড়ে নিয়েছে মানুষের স্বস্তি। বাংলাদেশের মানুষও লড়ে যাচ্ছে এই অদৃশ্য ভাইরাসের বিরুদ্ধে। লাখ লাখ মানুষ কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন। আমরা ইতিমধ্যে হারিয়েছিও অনেককেই। স্থবির অর্থনীতির একমাত্র হাতিয়ার কৃষি। সভ্যতার সূচনা থেকে মানুষকে সবসময়ই মোকাবিলা করতে হয়েছে দুঃসময়ের। জীবন মানেই এক যুদ্ধ, টিকে থাকার জন্য প্রতিনিয়তই লড়ে যেতে হয় প্রকৃতির সঙ্গে, মানুষের সঙ্গে। ফলে বলা যায় জীবন মূলত আনন্দ বেদনার মিলনগাঁথা।

বিশেষ করে বাংলাদেশের কৃষকের জীবন এক দক্ষ যোদ্ধার জীবন। শত প্রতিবন্ধকতা
পেরিয়ে মাটির বুক চিরে ঠিকই ফলিয়ে আনছে সোনার ফসল। কৃষকের কান্না আমাদের কান্না না হলেও, কৃষকের হাসিই আমাদের হাসি। কৃষকের হাসি কান্না নিয়ে প্রতি ঈদে গল্প গাঁথেন শাইখ সিরাজ তার ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’ অনুষ্ঠানে। জীবন যুদ্ধের কঠোরতাকে পেলব করতে কৃষকদের নিয়ে খেলায় মাতেন। গ্রামীণ খেলাধুলার অনাবিল আনন্দে মাতিয়ে তুলেন বাংলার কৃষকদের। পাশাপাশি থাকে ক্যামেরার লেন্সে তুলে আনা দেশ-বিদেশের বিস্ময়কর নানান গল্প। এবারের ঈদেও ব্যতিক্রম নয়। ঈদের দ্বিতীয় দিন বিকাল সাড়ে ৪টায় চ্যানেল আইতে প্রচার হবে ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’। পৃথিবীজুড়ে মহামারির তাণ্ডবেও আশার প্রদীপ হয়ে জ্বলছে কৃষক। আমাদের খাদ্য চাহিদা মেটাতে নিরলস কাজ করে যাওয়া এই জাতির ঋণ শোধ করার নয়। তাদের শ্রম, ঘাম, বঞ্চনার পাশে দাঁড়ানোর পাশাপাশি তাদের উজ্জ্বীবিত করতে এই ঈদে চ্যানেল আইতে প্রচার হবে ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’। তবে এবারের আয়োজন আর সব আয়োজন থেকে একেবারে ভিন্ন। এবারের ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’- হবে জেলায় জেলায় লড়াই। আরো নানান চমক থাকছে অনুষ্ঠানটিতে। এর পরিকল্পনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনায় রয়েছেন শাইখ সিরাজ নিজেই

SHARE